বিস্তারিত

টানেলে আটকা শ্রমিকদের উদ্ধারে ‘৫মিটার’ ব্যবধান

সাম্প্রতিক বিশ্ব

ভারতের উত্তরাখণ্ডে নির্মাণাধীন টানেল ধসের ১৫ দিন পর আর মাত্র ‘৫ মিটার’ খুঁড়লেই তাদের উদ্ধার করা যাবে বলে জানিয়েছেন উদ্ধারকর্মীরা।

ভারতের উত্তরাখণ্ড রাজ্যে নির্মাণাধীন একটি সুড়ঙ্গ (টানেল) ধসে আটকা পড়া ৪১ শ্রমিককে উদ্ধারে জোর তৎপরতা চলছে। গত ১১ নভেম্বর সুড়ঙ্গটিতে ধস নামে। এরপর থেকে সাড়ে ৪ কিলোমিটারের ওই সুড়ঙ্গের ভেতরে ১২ দিন ধরে আটকা পড়ে আছেন শ্রমিকেরা। তাঁদের উদ্ধারে ধসের মধ্য দিয়ে খনন করে ছোট সুড়ঙ্গ তৈরি করা হচ্ছে।

এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে জানা গেছে, সোমবার (২৭ নভেম্বর) রাত থেকে টানেলে ‘ম্যানুয়াল ড্রিলিং’ শুরু করেছেন উদ্ধারকর্মীরা। এর আগে ‘ভার্টিকাল ড্রিলং’ এর মাধ্যমে শ্রমিকদের কাছে পৌঁছানোর চেষ্টা করা হচ্ছিল। কিন্তু শুক্রবার (২৪ নভেম্বর) উদ্ধারকাজে ব্যবহৃত যন্ত্রটি বিকল হয়ে যাওয়ার পর ‘ম্যানুয়াল ড্রিলিং’ শুরু করা হয়।

আরো পড়ুন :  আফিম উৎপাদনে মিয়ানমার শীর্ষে

আরও পড়ুনঃ  ভিসা ছাড়াই মালয়েশিয়ায় যেতে পারবেন

এ বিষয়ে মাইক্রো টানেলিং বিশেষজ্ঞ ক্রিস কুমার বলেন, ‘আমরা এরইমধ্যে ৫০ মিটার পার করে ফেলেছি। এখন আর মাত্র ৫ থেকে ৬ মিটার খুঁড়তে হবে আমাদের’।

উত্তরাখণ্ডের সিল্কইয়ারা ও দান্দানগাঁওকে যুক্ত করতে প্রায় সাড়ে চার কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের টানেলের নির্মাণকাজ চলছিল। হিন্দুদের তীর্থস্থান উত্তর কাশীর সঙ্গে যমুনাত্রীর সংযোগ স্থাপন করতে ২৬ কিলোমিটার দূরত্ব কমিয়ে আনতে তৈরি হচ্ছিলো এই টানেল।

রোববার সকালে রাতের শিফটের শ্রমিকরা কাজ শেষে বের হচ্ছিলেন এবং দিনের শিফটের শ্রমিকরা প্রবেশ করার সময় এ দুর্ঘটনা ঘটে। আটকে পড়া শ্রমিকদের নিরাপদে বের করে আনতে তৎপরতা চালাচ্ছে উদ্ধারকর্মীরা।

আরো পড়ুন :  বার্ড ফ্লু ছড়িয়ে পড়ল ইউরোপে,সাবধানতা অবলম্বনে ফ্রান্সে

উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী পুষ্কর সিং ধামি বলেন, ‘ঘটনাটি জানার পর থেকে কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছি। ন্যাশনাল ডিজাস্টার রেসপন্স ফোর্স (এনডিআরএফ) ও স্টেট ডিজাস্টার রেসপন্স ফোর্সের (এসডিআরএফ) সদস্যরা ঘটনাস্থলে রয়েছেন। আটকে পড়া শ্রমিকরা যেন নিরাপদে বের হয়ে আসতে পারেন, সেজন্য ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করছি।

প্রদেশের দুর্যোগ বিভাগের কর্মকর্তা দুর্গেশ রাথোদি জানান, টানেলের প্রায় ২০০ মিটার জায়গা ধসে পড়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে অন্তত ৪০ থেকে ৪১ শ্রমিক ভেতরে আটকা পড়েন। ধ্বংসস্তূপের ভেতর দিয়ে তাদের জন্য অক্সিজেন সরবরাহ করা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *